সাকিব-ইয়াসির জুটিতে বড় সংগ্রহ বাংলাদেশের

১১৫ রানের জুটি গড়েছেন সাকিব-ইয়াসির। ছবিঃসংগ্রহীত

সেঞ্চুরিয়নে সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৩১৪ রান করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এই মাঠের গড় রান ২৯০।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দেখে শুনে করেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন কুমার দাস। ৯৫ রানের পার্টনারশিপ বড় সংগ্রহের ভিত্তি গড়ে দেয়। ৬৭ বলে ৪১ রান করে ফিরেন তামিম ইকবাল। ৫০ করে কেশব মহারাজের বলে বোল্ড হয়ে ফিরেন লিটন কুমার দাস। অল্প রানের ব্যবধানে আউট হয়ে যান মুশফিকুর রহিম। তবে ইয়াসির আলীকে সঙ্গে নিয়ে আক্রমণাত্মক ক্রিকেটের পসরা সাজান বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।  নিজের ক্যারিয়ারের ২১৯ তম ম্যাচ খেলতে নামেন সাকিব আল হাসান,  ছাড়িয়ে যান মাশরাফি বিন মর্তুজাকে। সাকিব এখন বাংলাদেশের তৃতীয় সর্বোচ্চ ওডিআই ম্যাচ খেলা খেলোয়াড়। ইয়াসির আলীকে সঙ্গে নিয়ে ১১৫ রানের জুটি বাঁধেন সাকিব।

ক্যারিয়ারের ৫০তম অর্ধশতক তুলে নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। ছবিঃ ফেসবুক

নিজের ক্যারিয়ারের ৫০তম অর্ধ-শতক করতে মাত্র ৫০ বল লাগে সাকিব আল হাসানের। মিড উইকেটের উপর দিয়ে ছক্কা হাঁকিয়ে এই মাইলফলকে পৌঁছান তিনি। ফিফটির পর আরো দুদার্ন্ত ক্রিকেট খেলেন সাকিব। একদিকে সাকিব অপরদিকে ইয়াসির আলীর ব্যাট থেকে বাউন্ডারি আসতে থাকে।একটা সময় মনে হচ্ছিল বাংলাদেশের রান হয়তো ৩৫০ হবে। ৪২তম ওভারে সাকিব যখন আউট হলো তখন বাংলাদেশের রান ছিলো ২৩৯। 

ক্যারিয়ারের প্রথম হাফ সেঞ্চুরি পেয়েছে ইয়াসির আলী রাব্বি। ছবিঃ টুইটার
 
জুটি ভেঙ্গে যাওয়ার পর বেশিক্ষণ স্থায়ী হয় নি ইয়াসির আলীর ইনিংস। নিজের প্রথম ফিফটি পাওয়ার পর আউট হয়ে গেছেন তিনি। দ্রুত দুই উইকেট পরে গেলেও বাংলাদেশকে ৩০০ রান করা থেকে আটকাতে পারে নি প্রোটিয়ারা। ছোট ছোট কার্যকরী ইনিংসে বাংলাদেশকে তিনশ পেরুতে সাহায্য করেছে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ,  আফিফ হোসেন ও মেহেদী হাসান মিরাজ। ১৭ বলে ২৫ রান করেন টি-২০ অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ। ১৩ বলে ১৭ রান করেন আফিফ,  ১৩ বলে ঝড়ো ১৯ রান করেন আরেক অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। 

দঃ আফ্রিকার হয়ে দুইটি করে উইকেট নিয়েছেন ইয়ানসেন ও মহারাজ।

সেঞ্চুরিয়নে ৩১৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করে একবারই জেতার রেকর্ড আছে দঃ আফ্রিকার। ২০১৬ সালে ডি কক ও আমলার ব্যাটের শতকে জিতেছিলো প্রোটিয়ারা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ