আইপিএলঃ চেন্নাইকে হারিয়ে শুভসূচনা কলকাতার

উইকেট পাওয়ার উচ্ছ্বসিত কলকাতা নাইট রাইডার্স। ছবিঃ টুইটার

আইপিএলের ১৫তম আসর  মাঠে গড়িয়েছে আজ। মুখোমুখি হয়েছিলো গতবারের দুই ফাইনালিস্ট কলকাতা নাইট রাইডার্স ও চেন্নাই সুপার কিংস। প্রথম ম্যাচে চেন্নাইকে ৬ উইকেটে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ৮ টায় শুরু হয় খেলা। টসে জিতে বল করার সিদ্ধান্ত নেয় কলকাতার নতুন অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার।

ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারে উইকেট হারিয়ে বসে চেন্নাই সুপার কিংস। ম্যাচের ৩য় বলে উমেশ যাদবের বেড়িয়ে যাওয়া ডেলেভারীকে তাড়া করতে গিয়ে নিতিশ রানার কাছে ক্যাচ দিয়ে আউট হন রিতুরাজ গাইকোয়াড। রবিন উথাপ্পা এসে ভালো শুরু করলেও অপর প্রান্তে থাকা কনওয়ে আউট হয়ে যান ৫ম ওভারে। আইপিএলের অভিষেকে মাত্র ৩ রান করেন এই কিউই ব্যাটার। ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়া চেন্নাই পাওয়ার প্লে-তে তুলতে পারে মাত্র ৩৫ রান। গুছিয়ে উঠতে শুরু করলেও ১২ রানের মধ্যে তিন উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে যেতে শুরু করে তারা। ৪৯ থেকে ৬১ রানের মধ্যে আউট হন ,রাইডু ও শিভাম ডুবে। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলার গুরু দায়িত্ব যথারীতি নিজের কাঁধে তুলে নেন সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। তাকে সঙ্গ দিয়েছেন বর্তমান অধিনায়ক।

৩৮ বলে ৫০ রানে অপরাজিত থাকেন ধোনি। ছবিঃ টুইটার

ধোনির ৩৮ বলে অপরাজিত ৫০ রানের কল্যাণে শেষ পর্যন্ত স্কোরবোর্ডে চেন্নাইয়ের সংগ্রহ ১৩১। জাদেজা করেন ২৮ বলে ২৬ রান। দুইটি উইকেট নেন উমেশ যাদব।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা করে কেকেআর। পাওয়ার প্লেতে ৪৩ রানের বিপরীতে কোন উইকেট হারাতে হয় নি তাদের। তবে মাত্র ২ বল পরে ভেঙ্কটেশ আইয়ারকে আউট করেন ডোয়াইন ব্রাভো। নিতিশ রানাকে সাথে নিয়ে ৩৩ রানের আরেকটি জুটি গড়েন আজিঙ্কা রাহানে। নিতিশ রানা আউট হলে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেন নি রাহানেও। দলীয় ৮৭ রানের মাথায় মিচেল স্যান্টনারের বলে আউট  হওয়ার আগে ৪৪ রানের কার্যকরী ইনিংস খেলেন তিনি।

দলকে জেতাতে ৪৪ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলার পথে রাহানে।  ছবিঃসংগ্রহীত

দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেওয়ার বাকি কাজটা সারেন স্যাম বিলিংস ও অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার। ব্যক্তিগত ২৫ রানে বিলিংস আউট হলেও ২০ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জয় এনে দেন শ্রেয়াস।

ডোয়াইন ব্রাভো নেন ৩ উইকেট। যেগুলোর কল্যাণে তিনি এখন আইপিএলের ইতিহাসে যৌথভাবে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী। মালিঙ্গার সমান ১৭০ টি উইকেট তার।

দুদার্ন্ত বল করার জন্য ম্যাচসেরা নির্বাচিত হয়েছেন উমেশ যাদব। 

কলকাতার পরবর্তী ম্যাচ ৩০ শে মার্চ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর সাথে। অপরদিকে ৩১ তারিখ নবাগত লক্ষ্মৌ সুপার জায়ান্টসের বিপক্ষে মাঠে নামবে চেন্নাই সুপার কিংস।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ